Skip to main content
 

থানায় আপনার অধিকার

কখন জিডি করতে হয়

  • যদি কোন কারণে কোন এলাকায় এক বা একাধিক লোকের মাঝে সংঘর্ষ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে
  • কেউ কাউকে কোন প্রকার হুমকি প্রদর্শন করে
  • কোন ব্যক্তির প্রাননাশের সম্ভাবনা দেখা দিলে
  • মূল্যবান কোন ডকুমেন্ট বা সম্পত্তি হারিয়ে গেলে

থানায় গিয়ে  কর্তব্যরত ডিউটি অফিসারকে উপরোল্লিখিত ঘটনা মৌখিক বা লিখিত আকারে জানাতে হয় এবং ডিউটি অফিসার ঘটনাটিকে সাধারণ ডায়েরিতে লিপিবদ্ধ করবেন।

 

জিডি করার পদ্ধতি

উপরে উল্লেখিত  বিষয়গুলো কোন একটি যদি আপনার জীবনে ঘটে যায় তাহলে আপনি জিডি করার জন্য লিখিত দরখাস্তের তিনটি কপি থানায় নিয়ে গিয়ে কর্তব্যরত ডিউটি অফিসারকে জিডি এন্ট্রি করার জন্য বলবেন। প্রত্যেক জিডির একটি এন্ট্রি নম্বর ও তারিখ থাকে। ডিউটি অফিসার একটি কপি থানায় জমা রাখবেন, একটি কপিতে জিডি এন্ট্রি নম্বর ও তারিখ লিখে থানার সিলমোহর দিয়ে দরখাস্তকারীকে ফেরত দিবেন। অন্য কপিটি তদন্তকারী কর্মাকর্তার জন্য রাখা হবে।

 

জিডিতে কি থাকে

জিডি বা সাধারণ ডায়েরি হল একটি থানা এলাকার চলমান চিত্ররূপ। থানায় রক্ষিত সাধারণ ডায়েরিতে নালিশকারীদের নাম, ঠিকান, ধৃত ব্যক্তির নাম, উদ্ধার করা অস্ত্রের বিবরণ, জব্দকৃত মালামালের বিবরণ, আসামী কোর্টে চালান দেয়ার তথ্য, এলাকার খাদ্যশস্যের মুল্য ও উৎপাদন, যাতায়াত ব্যবস্থা, পরিবেশ, মহামারীর সংবাদ, রাজনৈতিক অবস্থা, থানায় উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের আগমন-প্রস্থান ইত্যাদি সব বিবরণ।

 

সাধারণ জনগণের জিডির ভিত্তিতে পুলিশের করণীয়

 

তথ্যসূত্রঃ থানায় আপনার অধিকার, অ্যাডভোকেট আজিজুর রহমান, অসডার পাবলিকেশন্স। ২০১১।

                                                                                    

থানায় এজহার

 

এজহার কি?

এজহার হলো কোন আমলযোগ্য অপরাধ সম্পর্কে থানায় তথ্য প্রদান।

 

এজহার দায়ের করবেন যেভাবে

আপনার বা আপনার পরিচিত কোন ব্যক্তির বিরুদ্ধে কেঊ কোন প্রকার অপরাধ করলে আপনি যা দেখেছেন এবং শুনেছেন তা যথাযথভাবে ও সত্যিকারভাবে দরখাস্থের মতো করে লিখে থানায় কর্তব্যরত ডিউটি অফিসারের সামনে উপস্থাপন করতে হবে।

আপনার অভিযোগ মৌখিকভাবে থানায় কর্তব্যরত ডিউটি অফিসারকে অবহিত করতে পারেন। আপনার মৌখিক অভিযোগের ভিত্তিতে ডিউটি অফিসার অভিযোগকে যথাসম্ভব আপনার ব্যক্ত ভাষায় লিখতে হবে।

 

থানায় মামলা নেয়ার বাধ্যবাধকতা ও পদ্ধতি

আমলযোগ্য প্রত্যেক অপরাধের ক্ষেত্রে  পুলিশের সামনে প্রদত্ত প্রথম তথ্য রেকর্ড করতে হবে সেটা প্রাথমিকভাবে সত্য হোক বা মিথ্যা হোক, গুরুতর হোক বা ক্ষুদ্র হোক। [ পুলিশ প্রবিধান ২৪৪ (ক)]

 

মামলার কপি সরবরাহে বাধ্যবাধকতা

অনেক সময় দেখা যায়, থানায় মামলা হয়েছে কিনা- এ ব্যাপারে সাধারণ জনগন জানার জন্য থানায় গিয়ে মামলার কপি চাইতে গেলে বিড়ম্বনায় পড়েন। আইন আনুযায়ী থানায় রক্ষিত রেজিস্ট্রারে রেকর্ডেড মামলার কপি যে কোন ব্যক্তি পদ্ধতিগতভাবে আইনগত ফি প্রদানের মাধ্যমে পাওয়ার অধিকারী।

 

তথ্যসূত্রঃ থানায় আপনার অধিকার, অ্যাডভোকেট আজিজুর রহমান, অসডার পাবলিকেশন্স। ২০১১।

Cause List
আইন ও বিধি
decision of higher court
laws and act bangladesh code
bailable offence laws relating to land
Comments